ফের বিয়ে করতে যাচ্ছেন শাকিব খান! পাত্রী কে?

চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসের সঙ্গে ঢালিউড কিং শাকিব খানের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়েছে প্রায় সাড়ে চার বছর আগে। আর কতদিন একলা থাকা? তাইতো এবার দোকলা হবেন। অর্থাৎ, ফের বিয়ে করতে চলেছেন শাকিব খান। হ্যা, ঠিকই শুনেছেন। মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশের প্রথম সারির একটি গণমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এ কথা শাকিব খানই জানিয়েছেন।

কিন্তু পাত্রী কে? সেটা অবশ্য এখনো ঠিক হয়নি। কারণ, তার বিয়ের জন্য পরিবার থেকে পাত্রী দেখা চলছে। আবার বিয়ে করবেন কিনা প্রশ্নে কিং খান বলেন, ‘অবশ্যই বিয়ে করব। চলার পথে একান্ত আপন কারও সহযোগিতা সবারই প্রয়োজন। তাই পরিবার থেকে আমার জন্য পাত্রী খোঁজা হচ্ছে। হাতের সব কাজ শেষ করে হয়তো আগামী বছরই বিয়ের পিঁড়িতে বসতে পারি।’

২০০৮ সালে চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসকে গোপনে বিয়ে করেছিলেন শাকিব খান। ৭০টিরও বেশি সিনেমায় জুটি বেঁধে কাজ করেন তারা। সেখান থেকেই প্রেম, তারপর বিয়ে। দীর্ঘ ৯ বছর সে খবর গোপন রাখেন তারকা জুটি। ২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর কলকাতার একটি হাসপাতালে জন্ম হয় শাকিব-অপুর ছেলে আব্রাম খান জয়ের। গোপন রাখা হয় এ খবরও।

অবশেষে ২০১৭ সালের ১০ এপ্রিল ছেলে জয়কে নিয়ে একটি টিভি চ্যানেলের লাইভ অনুষ্ঠানে হাজির হয়ে সবকিছু প্রকাশ করেন অপু বিশ্বাস। এ ঘটনায় শাকিব খান প্রথমে ক্ষুব্ধ হলেও পরে সব স্বীকার করেন। এ ঘটনার সাত মাসের মাথায় ২০১৭ সালের ২২ নভেম্বর আইনজীবীর মাধ্যমে অপুকে তালাকের নোটিশ পাঠান শাকিব খান।

অভিনেতা সে সময় অভিযোগ তুলেছিলেন, ছেলে জয়কে ঢাকায় কাজের মেয়ের কাছে ফেলে অপু বয়ফ্রেন্ড নিয়ে কলকাতায় ঘুরতে গেছেন। পরে অপু বিশ্বাস কলকাতা থেকে ফিরে শাকিবের সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তিনি কলকাতায় ডাক্তার দেখাতে গিয়েছিলেন। জয়কে শাকিবের কোনো আত্মীয়ের কাছে রেখে যাওয়ার মতো পরিস্থিতি ছিল না। তাই কাজের মেয়ের কাছে রেখে গিয়েছিলেন।

কিন্তু অপুর সেই ব্যাখ্যা কানে তোলেননি শাকিব খান। নড়েননি নিজের সিদ্ধান্ত থেকেও। এরপর তারকা দম্পতির সংসার টেকাতে উদ্যোগী হয়েছিল ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন। তিন দফায় তারা সালিশি বৈঠকও ডেকেছিল। কিন্তু প্রতিবার সেই বৈঠকে অপু বিশ্বাস উপস্থিত থাকলেও দেখা মেলেনি শাকিব খান বা তার পরিবারের কারও।

অবশেষে ২০১৮ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি তালাকের নোটিশ পাঠানোর ৯০ দিন পার হলে আইনগতভাবে বিবাহ বিচ্ছেদ কার্যকর হয়ে যায় শাকিব-অপুর। ডিভোর্সের পর থেকেই শাকিব খানের সঙ্গে জুড়ে গিয়েছিল আরেক নায়িকার নাম। তিনি শবনম ইয়াসমিন বুবলী। এই জুটি টানা এক ডজন সিনেমায় জুটি বেঁধে অভিনয় করেন। সেখান থেকেই ছড়ায় তাদের প্রেমের গুঞ্জন।

তবে শাকিব-বুবলীকে নিয়ে গুঞ্জন শুধু প্রেম পর্যন্ত সীমাবদ্ধ থাকেনি। ঢালিউডজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছিল, এ জুটি গোপনে বিয়ে করে ফেলেছেন। এখানেও শেষ নয়। বুবলী শাকিব খানের সন্তানের মা হতে চলেছেন বলেও রব উঠেছিল। ২০২০ সালের মাঝামাঝি বুবলী কয়েক মাসের জন্য লাপাত্তা হয়ে গেলে সেই গুঞ্জন আরও জোরালো হয়। ফিসফাস চলে, অপু বিশ্বাসের মতো বুবলীও সন্তান জন্ম দেওয়ার জন্য লাপাত্তা হয়েছেন।

তবে মাস ছয়েক পর একলাই ফিরে আসেন চিত্রনায়িকা বুবলী। জানান, তিনি অভিনয়ের ওপর একটি কোর্স করতে যুক্তরাষ্ট্র গিয়েছিলেন। শাকিবের সঙ্গে সম্পর্কের গুঞ্জনের ব্যাপারে নায়িকার দাবি ছিল, তারা শুধুই সহশিল্পী। পেশাগত কাজের বাইরে তাদের মধ্যে আর কোনো ধরনের সম্পর্ক নেই। এরপর থেকেই ধীরে ধীরে কমতে তাকে শাকিব-বুবলীকে নিয়ে আলোচনা।

গত ৯ মাস ধরে যুক্তরাষ্ট্রে রয়েছেন ঢালিউড সুপারস্টার শাকিব খান। গত সেপ্টেম্বরে একটি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে যোগ দিতে তিনি দেশটিতে গিয়েছিলেন। সেখানে তাকে বিশেষভাবে সম্মানিত করা হয়। কিন্তু অনুষ্ঠান শেষ হলেও দেশে ফেরেননি কিং খান। সম্প্রতি তিনি যুক্তরাষ্ট্রে বৈধভাবে থাকার গ্রিন কার্ড পেয়েছেন। তবে দুই-এক দিনের মধ্যে শাকিব দেশে ফিরবেন বলে জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *