বিদেশে গিয়ে বুবলীর চাওয়া বুঝতে পেরেছেন শাকিব খান

দেশসেরা চিত্রনায়ক শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করে তারকাখ্যাতি পেয়েছেন হালের চিত্রনায়িকা শবনম বুবলী। ২০১৬ সালে শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করার সুযোগ পান সংবাদ পাঠিকা শবনম বুবলী।

এরপরই ঘুরে যায় বুবলীর ভাগ্যের চাকা। রাতারাতি তারকাখ্যাতি লাভ করেন তিনি। গড়ে ওঠে শাকিব-বুবলী জুটি। বেশ কয়েকটি সিনেমায় জুটি বাঁধেন তারা।

এদিকে শাকিব খান ও শবনম বুবলী জুটির প্রথম সিনেমা ‘বসগিরি’র গান ‘দিল দিল দিল’র ভিউ সম্প্রতি ইউটিউবে ১০০ মিলিয়ন ছাড়িয়েছে। যা ঢাকাই সিনেমার গানে মাইলফলক বটে।

মজার ব্যাপার হলো, এটিই বুবলীর অভিনয় করা প্রথম গান। তাই অন্যদের চেয়ে গানটির সাফল্যে তার আবেগ-উচ্ছ্বাস একটু বেশিই।

মঙ্গলবার (৬ সেপ্টেম্বর) ফেসবুক লাইভে এসে সেই উচ্ছ্বাসের কিছুটা প্রকাশ করলেন বুবলী। জানালেন গানটির শুটিংয়ের অভিজ্ঞতাও। নায়িকা জানান, এই গানের চিত্রায়ণ হয়েছে থাইল্যান্ডে। তবে প্রস্তুতির জন্য পর্যাপ্ত সময় ছিল না। তাই অনেকটা তাড়াহুড়োর মধ্যেই কাজটি করতে হয়েছিল।

বিদেশে গিয়ে বুবলীর চাওয়া বুঝতে পেরেছেন শাকিব খান

প্রচণ্ড গরমে শুটিং করেছিলেন শাকিব-বুবলীসহ পুরো ইউনিট। অতীতের স্মৃতি হাতড়ে বুবলী বলেন, ‘যারা থাইল্যান্ডে গেছেন, তারা জানেন সেখানকার আবহাওয়া কেমন। এত গরম যে ত্বক জ্বলে যায়! আমরা ভোর থেকে শুটিং করেছিলাম। একটু পর পর প্রোডাকশন টিম থেকে জুস, ফল দিয়েছিল খাওয়ার জন্য। কিন্তু আমি দেশের বাইরে কোথাও গেলে সেখানকার স্থানীয় খাবার তো খাই-ই, এর পাশাপাশি ভাত ও কাঁচামরিচ থাকতেই হয়। দুপুর অথবা রাতে একবেলায় অন্তত লাগেই। তো শুটিংয়ের লাঞ্চ বিরতিতে আমার মনে হচ্ছিল, একটু ভাত-কাঁচামরিচ হলে ভালো হতো।’

বুবলীর এই চাওয়া বুঝতে পেরেছিলেন সহশিল্পী শাকিব খান। তাই নায়িকার জন্য প্রোডাকশন টিমকে তিনি বলেছিলেন, ‘ম্যাডামের মনে হয় ভাত আর কাঁচামরিচ লাগবে। না হলে তো পটকা মাছের মতো মুখ ফুলিয়ে রাখবে।’

শাকিবের এমন কথা শুনে মুহূর্তেই শুটিং ইউনিটে হাসির রোল পড়ে যায়। তবে বুবলীর জন্য ভাত-কাঁচামরিচের ব্যবস্থাও করা হয়।

ভক্তদের ভালোবাসার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বুবলী বললেন, ‘আসলে প্রত্যেকটা কাজের পেছনে আমাদের মজার স্মৃতি খুব কমই থাকে। কষ্টটাই বেশি থাকে। সেই কষ্টটা সার্থক হয় আপনাদের ভালোবাসায়।’

403 thoughts on “বিদেশে গিয়ে বুবলীর চাওয়া বুঝতে পেরেছেন শাকিব খান

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *