অল্প সময়ের উপস্থিতিতেও দর্শক আমাকে কেন পছন্দ করে বুঝি না : শিমুল

অভিনেতা শিমুল শর্মা। মূলত নির্মাতা কাজল আরেফিন অমির সহকারী হিসেবে কাজ করতে গিয়ে অভিনয়ে প্রবেশ। তবে নিজেকে অভিনেতা হিসেবে পরিচয় দিতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন না শিমুল। হতে চান নির্মাতা।

সম্প্রতি গ্র্যাজুয়েশন শেষ করে এখন ফিল্ম নিয়ে উচ্চতর পড়াশোনা করার ইচ্ছা রয়েছে তাঁর।

ব্যাচেলর পয়েন্ট ধারাবাহিক নিয়ে এই মুহূর্তে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন শিমুল। কেননা ধারাবাহিকভাবে প্রচারিত হচ্ছে ব্যাচেলর পয়েন্টের সিজন ৪। দর্শকরাও অপেক্ষা করছেন নতুন নতুন এপিসোডের। ফলে ব্যাচেলর পয়েন্টের নতুন এপিসোডের সঙ্গে সঙ্গে শিমুলকেও ব্যস্ত থাকতে হচ্ছে।

এবারের ঈদে ব্যাচেলরকেন্দ্রিক নাটকগুলোও সবচেয়ে বেশি আলোচনায় ছিল। এর মধ্যে ব্যাচেলর রমজান ও ফিমেল ২ নাটক দুটি দর্শকদের অন্য মাত্রায় বিনোদন দিয়েছে বলেই এসবের ভিডিওর মন্তব্য বাক্স থেকে জানা যায়। সাম্প্রতিক সময়ে ব্যাচেলর পয়েন্ট, ব্যাচেলর রমজান ও ফিমেল-২ দিয়ে বেশ আলোচনায় এসেছেন শিমুল শর্মা।

শিমুল শর্মা বলেন, ‘আমি আসলে ছোট ক্যারেক্টার করি মানে পর্দায় আমার উপস্থিতি কম। তার পরেও এই কম সময়ের উপস্থিতি দর্শকরা ক্যাচ করে ফেলছে, এই কারণটাই বুঝতে পারি না। এটা বেশ আনন্দের। তা ছাড়া আমার ভাষা হয়তো একটা বিষয়, নোয়াখালীর ভাষায় কথা বলি। ভাষার কারণেও সংলাপ থ্রোয়িংয়ের কারণেও আমাকে ইদানীং আমার এক শ্রেণির ভক্ত হয়েছে, যারা আমার সঙ্গে কোনো অন্যায় হলে সোচ্চার হয়ে ওঠে। আমার পক্ষ নিয়ে কথা বলে। যদিও ভার্চুয়ালি বিষয়টি, তার পরেও আনন্দ লাগে। ’

ব্যাচেলর রমজান নিয়ে শিমুলের বলতে গেলে বেশ কঠিন অভিজ্ঞতাই হয়েছে। বললেন, ‘ব্যাচেলর রমজান নিয়ে অনেকগুলো অভিজ্ঞতা রয়েছে। কারণ নামাজের নিয়ম-কানুন, নামাজ পড়া- এসব আমাকে শিখতে হয়েছে। রোজা রাখার অভিনয় করতে হয়েছে। এসব আমাকে আত্মস্থ করতে হয়েছে। দর্শকরাও যেভাবে প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন আমি অভিভূত। ’

ফিমেল-২ নাটকের মাধ্যমেও নিজের দ্যুতি ছড়িয়েছেন শিমুল। এই নাটকে মারজুক রাসেলের সঙ্গে ইন্টারনেট ব্যবসা নিয়ে ঝামেলা ও তার বিচার প্রসঙ্গে ভক্তরা শিমুলের পক্ষ নিয়েছেন।

এমনটাই জানিয়ে শিমুল বলেন, ‘আসলে আমার সঙ্গে লাবু কমিশনার অবিচার করেছেন। আকবর ভাই সিনিয়র, তাই আমি দোষ না করা সত্ত্বেও আমার দোষ ধরে আমাকে মাফ চাইতে বলা হয়। আমি মাফ চাই। এটা ভক্তরা মেনে নিতে পারছে না। সবচেয়ে বড় কথা, লাবু কমিশনার একজন উসকানিদাতা, উনি সিনিয়রদের উসকানি দেন আবার জুনিয়রদেরকেও উসকানি দিয়ে দেন। ভক্তরা এসব নিয়ে প্রতিক্রিয়া দেখান। ’

এই মুহূর্তে শিমুল ব্যাচেলর পয়েন্টের শুটিং নিয়ে ব্যস্ত আছেন। আগামী চার দিন টানা শুটিং চলবে। এরপর একটি মুক্ত সময় পাবেন। কদিন আগেই শিমুল গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন করেছেন। সে সময় জানিয়েছিলেন, সিনেমা বানানো নিয়ে উচ্চতর পড়াশোনা করবেন। হয়তো ঢাকায়ই পড়বেন, না হলে বিদেশে যাবেন।

170 thoughts on “অল্প সময়ের উপস্থিতিতেও দর্শক আমাকে কেন পছন্দ করে বুঝি না : শিমুল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *